আন্তর্জাতিকলীড

আমেরিকার সঙ্গে সরাসরি সামরিক সংঘাতের ব্যাপারে রাশিয়ার হুঁশিয়ারি

টাইমস ২৪ ডটনেট: আমেরিকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আনাতোলি আন্তোনভ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, ইউক্রেনে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র সরবরাহ করে পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়া এবং আমেরিকাকে সরাসরি যুদ্ধের দিকে ঠেলে দেয়ার ঝুঁকি নিয়েছে।চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে মার্কিন পত্রিকা নিউজ উইককে দেয়া সাক্ষাৎকারে আন্তোনভ বলেন, ইউক্রেনে রাশিয়া সামরিক অভিযান চালানোর পর থেকে ন্যাটোভুক্ত দেশগুলো এবং তাদের মিত্ররা সরাসরি কোনো সামরিক তৎপরতা জড়ায় নি কিন্তু ইউক্রেনকে তারা বিপুল পরিমাণ অস্ত্র দিয়ে সক্রিয়ভাবে সহযোগিতা করেছে। এর মধ্যদিয়ে তারা চলমান পরিস্থিতিতে সরাসরি জড়িয়ে পড়েছে এবং আরো রক্তপাতের ব্যাপারে তারা উসকানি দিচ্ছে যা অত্যন্ত বিপজ্জনক ও উসকানিমূলক।
রুশ রাষ্ট্রদূত আরো বলেন, ন্যাটোভুক্ত দেশগুলো আমেরিকা এবং রাশিয়াকে সরাসরি সংঘাতের পথে ঠেলে দিতে পারে। পশ্চিমা দেশগুলো ইউক্রেনে যে অস্ত্র পাঠাচ্ছে সেই অস্ত্রের বহর রাশিয়ার জন্য বৈধ লক্ষ্যবস্তু পরিণত হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন আন্তোনভ।
তিনি আরো বলেন, রাশিয়া ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালানোর পর থেকে ন্যাটোভুক্ত দেশগুলো শুধু ইউক্রেনে অস্ত্রের ঢল নামিয়েছে তাই নয় বরং ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি যেদিন ঘোষণা করেছেন যে, তার দেশ পরমাণু অস্ত্র বানানোর পরিকল্পনা নিয়েছে সেদিন থেকে ন্যাটোভুক্ত পশ্চিমা দেশগুলো ইউক্রেনে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র সরবরাহ শুরু করে। গত ১৯ ফেব্রুয়ারি জার্মানিতে অনুষ্ঠিত মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে দেয়া বক্তৃতায় জেলেনস্কি বলেছিলেন, তার দেশ যদি রাশিয়ার সামরিক হুমকির মুখে পড়ে তাহলে পরমাণু অস্ত্র বানাবে।
চলমান সংকট সমাধানের ক্ষেত্রে রাশিয়া যে শর্ত দিয়েছে তা বহাল রয়েছে বলে উল্লেখ করেন আন্তোনভ। তিনি বলেন, ইউক্রেনকে অসামরিকীকরণ এবং নাজি মুক্তকরণের পাশাপাশি জোট নিরপেক্ষ ও পরমাণুমুক্ত রাষ্ট্র হিসেবে থাকতে হবে। এসব শর্ত মানলে ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান বন্ধ হবে বলে জানান আনাতোলি আন্তোনভ।

সূত্র: পার্সটুডে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button