চলতি সংবাদজাতীয়

মুষলধারে বৃষ্টিতে সরস্বতী পুজোর আনন্দ যেন মাটি করে দিচ্ছে

টাইমস২৪ ডটনেট, ঢাকা: পশ্চিমা লঘুচাপের প্রভাবে ঢাকাসহ সারা বাংলাদেশে মুষলধারে এবং কোথাও কোথাও ঝিরিঝিরি বৃষ্টিপাত হচ্ছে। শীতের মাঘ চলে এসেছে শেষ ভাগে। এরইমধ্যে বৃহস্পতিবার থেকে থেমে থেমে ঝিরিঝিরি বৃষ্টি হচ্ছে। শুক্রবার সকালে কালো মেঘে আকাশ ঢেকে ঢাকায় মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছে। এ যেন বর্ষার বর্ষণ নেমে এসেছে। ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় মুষলধারে সৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। বাংলাদেশে মুষলধারে ও ঝিরিঝিরি বৃষ্টিতে সরস্বতী পুজোর আনন্দ যেন মাটি করে দিচ্ছে। বাংলাদেশের উত্তরের জনপদ মাঘের বৃষ্টিতে কাবু হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ। তবে আরো একদিন পর কেটে যাবে এই বৃষ্টিপাত।
শনিবার বাংলাদেশে জাতীয় প্রেসক্লাব, রমনা কালী মন্দির, ঢাকেশ্বরী মন্দির ও রাজারবাগ কালী মন্দিরে সরস্বতী পুজো আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়াও স্কুল কলেজে ও বাসা বাড়িতেও পুজো হয় বাগদেবীর। ছোট বড় যে যেভাবে পারেন পুজো করেন। বাচ্চা-বড় সবার একটি মুক্ত আনন্দের দিন। সাজগোজ শুরু হয়ে যায় আগের দিন থেকেই। কেনাকাটা থেকে শুরু করে কত কাজ। তবে পুজোর আগের দিন এমন ছন্নছাড়া বৃষ্টি শুরু হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই ভীষণ সমস্যায় সবাই। একইভাবে মাথায় হাত ব্যবসায়ীদের। বাংলাদেশে টিপটিপ বৃষ্টি পড়ছেই। সরস্বতী পুজোর সব পরিকল্পনা ভেস্তে যাচ্ছে।
এদিকে দিনাজপুর আঞ্চলিক আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তোফাজ্জল হোসেন নর্থইস্ট নাওয়ের বিশেষ প্রতিনিধি হাবিবুর রহমানকে জানান, দিনাজপুরে শুক্রবার সকাল ৯টা পর্যন্ত ৩০ দশমিক ৩ মিলিলিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে, যা দেশের অন্যান্য জেলার চেয়ে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের রেকর্ড। পূবালী বায়ুর সঙ্গে পশ্চিমা বায়ুর সংমিশ্রনের ফলে দিনাজপুর, ঠাকুরগাও নীলফামারী, বগুড়া, রাজশাহী, পাবনা, নওগাসহ দেশের অনেক জেলায় এই বৃষ্টিপাত হয়েছে বা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও দেশের কিছু কিছু এলাকায় বজ্রসহ বৃষ্টি ও ঝড়ো বাতাস বইতে দেখা যায়। চলতি শীত মৌসুমের এর আগে গত ১৩ জানুয়ারী দিনাজপুরে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। সেদিন দিনাজপুরে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ১৮ মিলিমিটার। আবহাওয়া অফিসের রেকর্ড অনুযায়ী জানুয়ারী মাসে গত ছয় বছরে এটিই সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত ছিল। এর আগে গত ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে দিনাজপুরে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয় ২০ মিলিমিটার। এরপর গত ৫ বছরে জানুয়ারি মাসে মোট বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল ৯ মিলিমিটার।
এদিকে বৃষ্টিপাতের ফলে দিনাজপুরে তাপমাত্রা মাপন যন্ত্রের পারদ কিছুটা ওপরে উঠলেও অনুভূত হচ্ছে হাড় কাঁপানো তীব্র শীত। বৃষ্টি আর হিমেল বাতাসে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে এই জেলার মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। শুক্রবার দিনাজপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৩ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং একই দিন দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ১১ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, শুক্রবার রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় বৃষ্টি হতে পারে। চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি বর্ষণ হতে পারে। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় হালকা বৃষ্টি হওয়ার খবর পাওয়া যায়। সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে রাজশাহী বিভাগের তাড়াশে ১৭ মিলিমিটার। তবে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায় আগামী তিনদিনে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা কমে যেতে পারে।
আবহাওয়াবিদ ড. মুহাম্মদ আবুল কালাম মল্লিক নর্থইস্ট নাওকে জানান, সারা বাংলাদেশে রাতের তাপমাত্রা অনেকটা অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা দুই থেকে তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে। আজকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে তেতুলিয়ায় ১১ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া অধিদপ্তর আরো জানায়, সারাদেশে মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

 

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button