রাজনীতিবিদদের সৎ হতে হবে: গণপূর্তমন্ত্রী

টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা:রাজনীতি রাতারাতি ধনী হওয়ার রাস্তা নয়, মনে রাখতে হবে। রাজনীতি যেন টাকা বানানোর হাতিয়ার না হয়। রাজনীতিবিদদের সৎ হতে হবে। তাহলেই দেশ সঠিক নেতৃত্ব পাবে, দ্রুত উন্নতির শিখরে পৌঁছাতে পারবে। গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম শনিবার রাজধানীর সরকারি তিতুমীর কলেজের দিনব্যাপী সুবর্ণজয়ন্তী ও সাবেক শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
সকালে উৎসবের উদ্বোধন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী, উৎসব উদযাপন পর্ষদের আহ্বায়ক ও কলেজের সাবেক ছাত্র টিপু মুনশি এমপি। কলেজ অধ্যক্ষ মো. আশরাফ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা-১৭ আসনের সংসদ সদস্য আকবর হোসেন পাঠান (ফারুক)।
বক্তব্য দেন উপাধ্যক্ষ আবেদা সুলতানা, কলেজের সাবেক ভিপি ও পর্ষদের যুগ্ম আহ্বায়ক কামাল উদ্দিন আহমেদ, সাবেক এমপি, ভিপি ও পর্ষদের সদস্য সচিব সিরাজ উদ্দিন আহমেদ, সাবেক রাষ্ট্রদূত সোহরাব হোসাইন, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) সভাপতি আবু জাফর সূর্য প্রমুখ। এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে যোগ দেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম।
শ ম রেজাউল করিম আরও বলেন, সোনার বাংলা গড়তে হলে সোনার মানুষ চাই। সুনাগরিকের গুণাবলিতে থাকতে হবে সততা, দেশপ্রেম, নৈতিকতা ও মূল্যবোধ। দেশের ভালো প্রতিষ্ঠানগুলোরই একটি এই ঐতিহ্যবাহী সরকারি তিতুমীর কলেজ, যা অর্ধশতাব্দী ধরে আলোকিত মানুষ তৈরি করছে।
মন্ত্রী আরও বলেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধে সফল হয়েছি। অর্থনৈতিক মুক্তি এনেছি। এবার দরকার আরেকটি ‘মানসিক মুক্তিযুদ্ধ’। অবৈধভাবে সম্পদ আহরণের আকাঙ্ক্ষা, ঘুষ ত্যাগ করতে হবে। দুর্নীতি, মাদক ব্যবসা, ইভটিজিং রোধ করতে হবে। এককথায়, নৈতিক মূল্যবোধের উন্নয়ন ঘটাতে হবে।
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এই কলেজে তার ছাত্রজীবনের স্মৃতিচারণ করেন। ‘জিন্নাহ কলেজ’ থেকে ‘তিতুমীর কলেজ’ নামকরণের পটভূমি ও তাৎপর্য তুলে ধরেন। বলেন, শুরুতে একটি গোডাউনকে কলেজ ভবনে রূপান্তর করা হয়। আমাদের ক্লাস করতেও কষ্ট হতো। বর্তমান প্রজন্ম তা চিন্তাও করতে পারবে না। শিক্ষাবান্ধব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষাব্যবস্থাকে বিজ্ঞান, প্রযুক্তিনির্ভর ও বাস্তবমুখী করার পদক্ষেপ নিয়েছেন। সুষ্ঠু পাঠদনের পরিবেশ করে দিতে আধুনিক ভবনাদি তৈরি করে দিচ্ছেন। শিক্ষার্থীদের এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে হবে। পরে বিশেষ অতিথি চিত্রনায়ক ফারুক এমপি উৎসবে শামিল হয়ে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা রূপায়ণে নিরলস কাজ করছেন তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাকে সবার সহযোগিতা করতে হবে। উৎসবের দ্বিতীয় পর্বে ছিল স্মৃতিচারণ ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *