কেশরগঞ্জের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সুজন প্রতিভা বিকাশের সুযোগ চায়

মো. আ: জব্বার, টাইমস ২৪ ডটনেট, ফুলবাড়ীয়া (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার কেশরগঞ্জের প্রতিভাবান কন্ঠশিল্পী দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সুজন পাল তার বহুমুখী প্রতিভা বিকাশের জন্য উপজেলা প্রশাসন, বেসরকারী সংস্থা, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াসহ সকলের নিটক সহযোগিতা চেয়েছেন। কখনো রাস্তা-ঘাটে, কখনো হাট-বাজারে আবার কখনো কোন বাড়ীর উঠানে সুজনকে দেখা যায় সুললিত কন্ঠে গান গেয়ে মানুষের মন জয় করতে। জন্মান্ধ এই সুজন গান গাওয়ার পাশাপাশি ডোল-খুল, তবলা, ড্রাম-সেড্রামসহ বিভিন্ন ধরনের বাদ্যযন্ত্র বাজাতে পরে অনায়াসেই। দ্ররিদ্র এই সুজন কোন সঙ্গীত বিদ্যালয়ে চর্চা করার সুযোগ পায়নি, পায়নি কোন সঙ্গীত শিক্ষকের সহচর্চ তবুও বিভিন্ন জনপ্রিয় গান গেয়ে হাজারো দর্শকের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। তার গান শুনে দর্শক স্রোতা আর্থিকভাবে যে সহযোগিতা করেন তাতে সুজনের মা সহ তাদের সংসার চলছে ভগবানের কৃপায়। সুজন জন্মান্ধ হওয়ার পরও যেকোন স্থানে চলতে, বা কোন মানুষের কন্ঠ শুনে মানুষ চিনতে এমনকি তার মোবাইল ব্যবহার করতে কোন অসুবিধা হয় না। ১৯৮৫ সালের নভেম্বর মাসে টাংগাইলের কালিহাতি উপজেলার কালিহাতি উত্তরপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন জন্মান্ধ সুজন চন্দ্র পাল। সুজনের ১০ বছর বয়সে তার বাবা ক্যান্সার রোগে মারা গেলে সুজনের মা অাতুশী রাণী পাল তার ভাইয়ের বাড়ী (সুজনের মামার বাড়ী) ফুলবাড়ীয়া উপজেলার কেশরগঞ্জস্থ নাওগাও বড় পাল বাড়ীতে আশ্রয় নেন। বর্তমানে সুজন উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় গান গেয়ে বেড়ান। প্রতিভাবান সুজন তার প্রতিভা বিকাশের জন্য সাংস্কৃতি মনা, বিশষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব উপজেলা নির্বাহী অফিসার বনানী বিশ্বাসসহ সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।
উল্লেখ্য যে, গত ১৫ জানুয়ারী/১৬, শুক্রবার বিকালে সন্তোষপুর রাবার বাগানে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সুজনের গান শুনে আর্থিক ভাবে সুজনকে পুরস্কৃত করছেন আনন্দ মোহন কলেজের সমাজ কল্যাণ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর আর,জে,এম, সেলিম রেজা তালুকদার এবং হামদর্দ ফুলবাড়ীয়া শাখার ব্যবস্থাপক আব্দুর রব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *