কবি~সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের ভালো লাগা কবিতার মধ্যে কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক’-এর লেখা এই কবিতাটি অন্যতম স্বপ্ন ছিঁড়ে জেগে ওঠে পাতার ছায়ারা

~বিদ্যুৎ ভৌমিক~
[ কবিতার সত্য ও মিথ্যার অবয়ব নির্মাণ করার দুঃসাহস এখনো আমার হয়নি ! ভেতর থেকে প্রেরণা-ও আসেনা । প্রায় ৪০ বছর একটানা এই কবিতা লেখার পাগলামির সাথে আমি আদ্যোপান্ত ভাবে মিলেমিশে আছি ! এই ব্যাপারটা আমার কয়েকটা দেশের পাঠক বন্ধুরা জানেন । ‘কবিতার শরীর নির্মাণ’ -এই বিশেষ শব্দটা কয়েক বছর ধরে আমার কানে আসছে ! এটা নিয়ে আমি অযথা চিন্তিত নই । তবে এই ব্যাপারে আমাকে নানান প্রশ্নের সামনে দাঁড়াতে হচ্ছে । আমি যে ভাবে আমার কলম-কে কবিতা লেখার বুদ্ধি দিয়ে পরিচালনা করি ; তার মধ্যে শব্দ নির্বাচন , স্বচ্ছ ও অস্বচ্ছ দর্শন এবং মনের অদেখা দর্পণে তার চিত্রকল্প । এটাই আমার একমাত্র কবিতা লেখার কেমিস্ট্রি । পাঠক ও সমালোচক , তাঁরা যেভাবেই দেখুন আমার লেখা হয়ে যাবার পর অর্থাৎ প্রকাশিত হবার পরবর্তী সময়ে আমার ওই কবিতাটার প্রতি কোন দায় দায়িত্ব থাকেনা বললেই চলে । প্রায় ১০০০০ দশ হাজার কবিতার জনক আমি ! এতো দায়িত্ব সামলাই কি করে ? আমি কবিতা ব’লতে মঞ্চে উঠলে পাঠকদের উৎসাহ দেখি ! তাঁদের মন ও মেজাজ বুঝে কবিতা বলি । এমন-ও ঘটনা আছে , কোন অনুষ্ঠানে আমি কবিতা ব’লতে গেছি ,– কোন কোন পাঠক ও শ্রোতা আমাকে ১৫ কি ২০ বছরের লেখা কবিতা বলার জন্য স্লিপ পাঠান ! ভাবুন একবার , কি করে মেনে রাখি বলুন ! কবেকার লেখা অতশত মনে থাকে ? যাই হোক আপনারা যে এতদিন ধরে আমাকে ও আমার কবিতাকে সহ্য করে আসছেন , এটাই আমার কাছে সবথেকে বড় পুরস্কার । কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক // ভারত , পশ্চিমবঙ্গ , শ্রীরামপুর , হুগলী // ]
দূর থেকে দূরে উর্দ্ধবাহু ঘাসকে ডাকে প্রদ্ভিন্ন তরঙ্গের কাছে
শৈলীর ভিতর যেন সুন্দর করে ওঠা – নামা
মৃত্যুর স্পর্শ ক’রে সীমানায় চেয়ে আছে ফিরিঙ্গি ডাঙার চাঁদ ****
জাগবার নরম আনন্দে স্বপ্ন ছিঁড়ে জেগে ওঠে পাতার ছায়ারা
আরো কত মুখরেখা !

শিশির শান্ত চোখ প্রদীপ নিভিয়ে বলে ওঠে ; ভোর হ’লো *****
ভাঙা বাটির উপর সূর্য গভীর
চেয়ে দেখে আমার পঞ্চাশ বছর এগিয়ে আসছে, —
ময়দানে বক্তব্য ফুরালে শ্রুতি – বিনোদন থেমে যাবে
জ্যামিতিক মুখগুলো অতলে দাঁড়াবে রোজ তৈমুরের মতো ,
অথচ কয়লা ধুয়ে উঠে আসবে না শ্বেতাঙ্গ সিন্ধুসারস !

মুখশ্রী বেঁকিয়ে চন্দ্রমুখী স্বতন্ত্র হাঁটে অনাবিল পথে
মেঘের আড়ালে *****
ভিজে ছাতার ভিতর হিজল কান্না স্থির ,
তবুও নিমপাখি শোনায় ব্যথা ভোলার কথা
ভাসানের গানে বইচির বনে একা মুখ লুকিয়ে কেঁদেছি প্রতিদিন !

এই দেখ ব্যথার চোখ ধুই অমোঘ অশ্রুতে
হৃদয় ছেনে শুনি তোমার নিঃশ্বাস ,
চেয়ে দেখ বসুন্ধরা ; যেন আমার পঞ্চাশ বছরের হামাগুড়ি ****
মসৃণ মাছারাঙা ধরেছে শিকার, জলের ভেলায় চেপে ভেসে গেছি
নীলকণ্ঠ পত্রনবীশের কাছে গল্প শুনতে !

এখানে অভিশাপ প্রচুর, এই ঘরে স্মৃতি – ধ্বনি বিদেহী চতুর
নগ্ন শৈশব নিয়ে পেরিয়ে যাই সন্ধ্যার বকুল বাগান *****
এসো আমার মতো নগ্ন সমাধিতে ;
মগ্ন স্বেচ্ছায় ঠেলি কবিতার কবোষ্ণ লাইন
ভিতর থেকে দেখি সবুজ কি হলুদ, আমার বসুন্ধরা সেন যেন !

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

etiler escort taksim escort beşiktaş escort escort beylikdüzü

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/times24/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/times24/public_html/wp-content/plugins/really-simple-ssl/class-mixed-content-fixer.php on line 110

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/times24/public_html/wp-content/plugins/ssl-zen/ssl_zen/classes/class.ssl_zen_https.php on line 177