প্রবাসী কবি মোহিত চৌধুরীর তিনটি কবিতা

খবর আসে
খবর আসে খবর মানব সভ্যতার খবর।
সৃস্টি সুখের খবর।
সভ্যতা জয়ের খবর।
বিনাশ যজ্ঞের খবর!
চির শোষিতের খবর।
রাত্র‍্যন্ধ্যে আলো আধারের চক্রবাঁকে,
যৌবনের জলসা ঘরে।
প্রমোদ বালিকার রিনিঝিনি ঘুঙুরের ছন্দে,
পরা শোষকের কামনার নৃত্য উল্লাসে।
সভ্যতার পতনের করুন খবর।

খবর আসে খবর সভ্যতার খবর।
সর্বোত্তম ধর্মানুরাগীর খবর।
ধর্মদ্রোহী অবিশ্বাসের খবর।
জাতিতে,জাতিতে হিংসা বিদ্বেষ!
হানাহানি যুদ্ধ-বিগ্রহ।
দারিদ্র্য মহামারী ক্ষুধা দুঃখ দূর্দশা মৃত্যু।
বেঁচে থাকার জীবন সংগ্রাম।
শ্রেণী বৈষম্য শ্রেনী ঘৃনা!
শ্রেনী তোষণ শাসণ ত্রাসণ।
ক্ষুধার অন্ন লুন্ঠণ করে।
সুউচ্চ পর্বতশ্রেণীর আগ্নেয়গিরির,
ভয়ানক অগ্নুৎপাত সম্পদের স্ফূরণ।

খবরকে দেখেছি আমি।
হরেক রকম খবর হয়ে,
ভূগোলের প্রান্তরে দুর্বার ছুটে চলে।
রাজবন্দীর রাত্রিজাগা বেদনার,
মহাকাব্যে মোড়ানো জীবনের গল্প।
তাঁর প্রেয়সির নোটন খোঁপায় ঝরে পড়তে।
কিংবা ফাঁসির মঞ্চে দন্ডিতের শেষ মন্ত্রোচ্চারণে।

খবর আসুক খবর সমকাল পার হয়ে,
নব পৃথ্বীর সমতার পৃথ্বী।
অহিংসার ব্রজানলে পুড়ে ছাড় হোক,
পৃথ্বীর হিংসাত্মক পরমাণুর পরমানন্দ।
ক্ষুধার আঘাতে লজ্জা বিক্রয়রত।
রাত্রি জাগা বেশ্যার দুটি লাল চোখে,
পরম নির্ভরতার সাম্যবাদ মানবিক পৃথ্বীর।

ফ্লোরেন্স সিটি ইটালী।
শনিবার বিকেল।
১৮ এপ্রিল ২০২০ইং

শূণ্য হৃদয় পত্র
শূণ্য হৃদয় গগন জুড়িয়া
মেলিয়া দেখি আঁধার।
শূণ্য এ হৃদয় পত্রে ফিরিয়া আসিও আবার।
হৃদয়ের তৃণলয়ে প্রেমের শতদলে,
ফিরিয়া যদি নাহি আসো আর।
মোহ নিশ্চল শৈবালে পড়িয়া রহিব।
তব ঝড়া বকুলের ধূসর বাগিচায়,
মলিন বকুলের সুবাস পাতে।
ফুটিয়া নিশি প্রভাতে বকুলের ধূসর প্রাতে।
কেন রাঙা পদ্মপত্রে পদচিহ্ন আঁকিবেনা আর?
এ শূধু রুদ্র ঝড়ের তিমির রাত।
ক ফোটা কোমল বৃষ্টি ঝড়াক তোমার আঁখিপাত।
তোমার আঁখির জলপ্রপাতে,
বিধেছে কাঁটা প্রতিক্ষণ শূণ্যহৃদয় পত্রপুটে।

ফ্লোরেন্স সিটি ইটালী।
শনিবার সন্ধে।
১৮এপ্রিল ২০২০ইং।

নিদ্রাবিহীন নিশি
নয়ন প্রদীপ জ্বালিয়ে আঁধারের জলপ্রপাতে।
নিশি জাগিয়া থাকি নিদ্রা তুমি এসো চলিয়া।
যদি দ্বীপ জ্বেলে যায় মোর দুঃখ নীড়ে,
বাহির পানে রবি শশী জাগিয়া উঠে।
তব যেও নাহি আমায় ফেলিয়া।
তৃষিত নিশির তৃষ্ণা জলে,
শিশিরের কোমল প্রভাতে।
রাঙাবে তোমার নয়ন প্রানে,
নিদ্রাবিহীন নিশি প্রভাতে।

যদি কখনও নয়ন শিখায় বারি ঝড়ে।
নয়ন প্রদীপ যায় নিভিয়ে।
সহস্র নিশির নিশিকথা যায় ফুরিয়া
নিদ্রাবিহীন নিশিতে নিদ্রা তুমি এসো চলিয়া।

যদি কখনও সুখ নিদ্রানীড়ে।
মোর প্রিয়ার আঁখিপাতে বিরহ জল ঝড়ে।
বিরহের নিশি বীণা বাজিয়া উঠে,
নিশিকাব্য প্রভাতে শিশিরের কাঁন্না ঝড়ে।
নিদ্রা তুমি যেও নাহি নিশি বীণা ফেলিয়া।
গগনতলে চিরনিদ্রাতৃষার তুষার গলিয়াছে।

ফ্লোরেন্স সিটি ইটালী।
সোমবার ভোর।
৫:৫৫মিনিট
২০এপ্রিল ২০২০ইং।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

etiler escort taksim escort beşiktaş escort escort beylikdüzü