অর্থনীতি

জনগণকে অতিরিক্ত পণ্য কেনা থেকে বিরত থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগণকে আতঙ্কিত হয়ে অতিরিক্ত পণ্য কেনা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, দেশে পর্যাপ্ত খাদ্য শস্যের মজুদ রয়েছে। তিনি বলেন, ‘অযথা আতঙ্কিত হয়ে বেশি করে পণ্য কিনে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়ানো গর্হিত কাজ। সবাইকে এই ধরণের অপতৎপরতা থেকে বিরত থাকতে হবে।’
এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নোবেল করোনাভাইরাসের সুযোগ নিয়ে কেউ যেন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মজুত করতে না পারে সেদিকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এবং জনগণকে নজরদারি বাড়াতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শনিবার সকালে ঢাকা-১০ আসনে জাতীয় সংসদ উপ-নির্বাচনে ঢাকা সিটি কলেজ কেন্দ্র ভোট প্রদানের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে একথা বলেন।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা পর্যবেক্ষণ করছি যে, আতঙ্কিত হয়ে কিছু লোক অতিরিক্ত মাত্রায় খাদ্যদ্রব্য কিনে সংরক্ষণ করছে। তবে, আমি পরিষ্কারভাবে বলতে চাই যে, আমাদের কোন খাদ্য সমস্যা নেই। আমাদের পর্যাপ্ত খাদ্যশস্য মজুত রয়েছে। তাই, আতঙ্কিত হয়ে অতিরিক্ত খাদ্যদ্রব্য কেনার দরকার নেই।’ তিনি বলেন, তিনি ইতিমধ্যে এই বিষয়ে অর্থমন্ত্রী, অর্থ সচিব এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের সাথে বৈঠক করেছেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের যে রিজার্ভ রয়েছে তা দিয়ে আগামী এক বছরের জন্য প্রয়োজনীয় খাদ্য কেনার সক্ষমতা আমাদের রয়েছে। সুতরাং এ নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কোন কারণ নেই।’
শেখ হাসিনা বলেন, সরকারি গুদামগুলিতে সাড়ে তিন লাখ মেট্রিক টন গম ছাড়াও ১৭ লাখ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য মজুত রয়েছে। এর পাশাপাশি, বেসরকারি রাইস মিলগুলোতে প্রচুর পরিমাণে খাদ্যশস্য রয়েছে। তিনি বলেন, ‘তাই, আমি সকলকে যতটুকু প্রয়োজন ঠিক ততটুকু খাদ্যদ্রব্য কিনতে অনুরোধ জানাই।’
শেখ হাসিনা বলেন, ভোক্তারা অতিরিক্ত নিত্যপণ্য কিনলে বাজারে চাপ সৃষ্টি হয়। এর ফলে প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়ে যায়। তিনি বলেন, যাদের পর্যাপ্ত অর্থ আছে তারা এক সাথে অনেক পণ্য কিনতে পারেন। কিন্তু সাধারণ ও সীমিত আয়ের মানুষদের এক সাথে এতো পণ্য কেনার মতো সামর্থ নেই।
প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘কাজেই অন্যের কষ্ট বাড়ানোর কোন অধিকার কারো নেই।’
একটি উদাহরণ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি টেলিভিশনে দেখলাম যে একজন বলছেন, তিনি ৩০ কেজি লবন কিনেছেন। আমি জানি না তিনি এই লবন কত দিনে খাবেন।’
শেখ হাসিনা বলেন, এর আগে অনেকেই বিপুল পরিমাণ পেঁয়াজ কিনেছিল। তখন এর দাম বেড়ে গিয়েছিল।তিনি আরো বলেন, ‘কিন্তু পেঁয়াজ পচনশীল হওয়ায় সেগুলো তাদেরকে আবর্জনার স্তুপে ফেলতে হয়েছে।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারের পাশাপাশি জনগণকেও সতর্ক থাকতে হবে যাতে করে কেউ করোনা প্রাদুর্ভাবের অজুহাতে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য মজুদ করতে না পারে।
শেখ হাসিনা বলেন, অতিরিক্ত পণ্য কিনে বাজারের উপর চাপ সৃষ্টি করা ঠিক হবে না।
তিনি আরো বলেন, ‘আমরা চাই সবাই স্বাভাবিক জীবন যাপন করুক। আমরা বাংলাদেশের নাগরিক। আমাদের মাটি আছে, আমাদের সব আছে।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশকে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত রাখতে সরকার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।
তিনি আরো বলেন, ‘চীনে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পরার পরপরই আমরা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছি। আমরা তখন চীন থেকে ৩১৫ জন শিক্ষার্থীকে দেশে ফিরিয়ে আনি এবং কোয়ারেন্টাইনে ১৪ দিন রাখার পর তাদের ছেড়ে দেই।’শেখ হাসিনা বলেন, বিমানবন্দর ও স্থল বন্দরগুলোতে বিদেশ থেকে আগতদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে।
তিনি বলেন, ‘যদি কাউকে এই ভাইরাসে সংক্রমণ বলে সন্দেহ করা হয়, তবে তাকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হচ্ছে।’
এ ব্যাপারে তিনি আরো বলেন, যারা বিদেশ থেকে দেশে ফিরছেন তাদেরকে তাদের পরিবারের সদস্য ও অন্যান্যদের নিরাপত্তার জন্য অবশ্যই অন্তত ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।তিনি বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগ ও আইইডিসিআর সতর্ক আছে এবং দেশে প্রাণঘাতী ভাইরাসটিকে নিয়ে পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছে।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা এই সব পদক্ষেপ নিচ্ছি যাতে মানুষ সতর্ক থাকে এবং এ ক্ষেত্রে আমরা বলতে পারি যে বাংলাদেশের পরিস্থিতি বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় অপেক্ষাকৃত ভাল।’ সরকার প্রধান বলেন, সরকার করোনাভাইরাস সংক্রমিত রোগীদের জন্য বেশ কয়েকটি বিশেষায়িত হাসপাতাল করেছে। তিনি বলেন, ‘আমরা চিকিৎসক ও নার্সসহ হাসপাতালগুলোতে কর্মরত অন্যান্যদের নিরাপত্তাও নিশ্চিত করেছি।’
তিনি আরো বলেন, ‘আমরা চিকিৎসক ও নার্সদের মাস্ক ও পার্সনাল প্রোটেক্টিভ ইকুয়েপমেন্ট (পিপিই) আমদানি ও তৈরি করছি।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার টেলিভিশন, বেতার ও অন্যান্য গণমাধ্যমে প্রাণঘাতী ভাইরাস সম্পর্কে মানুষকে সতর্ক করতে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।
তিনি বলেন, ‘আমি আশা করি দেশবাসী সরকারের নির্দেশনা মেনে চলবেন।’
শেখ হাসিনা বলেন, সরকার জনগণকে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস থেকে রক্ষা করতে এক স্থানে কয়েকজনের সমাগমকে নিষিদ্ধ করেছে। তিনি আরো বলেন, ‘আমরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষির্কীর অনেক অনুষ্ঠান বাতিল করেছি এবং এর মধ্য দিয়ে আপনারা বুঝতেই পারছেন যে আমরা জনগণের নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যের প্রতি কতটা গুরুত্ব দিচ্ছি।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা একবারই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপনের সুযোগ পেয়েছি এবং আমরা এমন একটি সুযোগ আর পাব না। তবুও আমরা জনগণের স্বার্থ ও কল্যাণের জন্য জন্ম শতবার্ষিকীর কর্মসূচি স্থগিত করেছি।’ তিনি আরো বলেন, ‘এই ভাইরাস যাতে দেশব্যাপি ছড়িয়ে পড়তে না পারে তার জন্য জনসমাবেশ ঘটে এমন কর্মসূচিও আমরা বাতিল করবো।’ আগামী ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পনের কর্মসূচি বাতিলের ইঙ্গিত করে প্রধান মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এ বিষয়ে আলোচনা করবো এবং মনে হয় এটাও স্থগিত হবে।’ পরিবারের সদস্য ও সাধারণ মানুষ যাতে এই ভাইরাসে আক্রান্ত না হতে পারে তার জন্য প্রধানমন্ত্রী বিদেশ থেকে আগত লোকদের অপ্রয়োজনে এখানে-সেখানে ঘোরাফেরা না করার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, ‘যদি আপনি অবাধে চলাফেরা করেন তবে আপনি, আপনার পরিবারের সদস্য এবং অন্য লোকেরা এই ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন। অতএব অন্যের জীবন বিপদের মুখে ঠেলে দেওয়া ঠিক নয় এবং আমি আশা করছি আপনারা এ ব্যাপারে সতর্ক থাকবেন।’
শেখ হাসিনা লোকদের প্রতি রোগ প্রতিরোধে মৌসুমি ফল খাওয়ার এবং নিজেকে ও পরিবারের সদস্যদের রক্ষায় এখানে-সেখানে ঘোরাফেরা করার পরিবর্তে যতদূর সম্ভব ঘরে অবস্থানের পরামর্শ দেন।
মহান আল্লাহ যাতে মানবজাতি, বিশেষ করে বাংলাদেশ ও এ দেশের লোকদের এই ঘাতক ব্যাধি থেকে রক্ষা করে তার জন্য প্রার্থনা করার আহ্বান জানান তিনি।
জাতীয় সংসদের ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে ইনশাল্লাহ লোকেরা ‘নৌকায়’ ভোট দিবে বলে প্রধানমন্ত্রী আশা প্রকাশ করে বলেন, ‘আমরা এই ভোটে জয়লাভ করবো ইনশাহ আল্লাহ।’
অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন ও এই আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন এবং প্রধানমন্ত্রীর সংশ্লিষ্ট সচিবগণ উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র: বাসস।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

mersin escort mut escort mersin escort canlı tv izle konya escort
sakarya escort sakarya escort sakarya escort sakarya escort sakarya escort
sakarya escort sakarya escort ümraniye escort serdivan escort
ankara escort ankara escort bayan escort ankara
Balıkesir escort Manisa escort Aydın escort Muğla escort Maraş escort Yozgat escort Tekirdağ escort Isparta escort Afyon escort Giresun escort Çanakkale escort Trabzon escort Çorum escort Erzurum escort Zonguldak escort Sivas escort Düzce escort Tokat escort Osmaniye escort Didim escort Kütahya escort Mardin escort Van escort Yalova escort Şanlıurfa escort Ordu escort Alanya escort Fethiye escort Sakarya escort Konya escort Elazığ escort Kayseri escort Hatay escort Diyarbakır escort Kocaeli escort Gaziantep escort Adana escort Van mutlu son Maraş mutlu son Şanlıurfa mutlu son Isparta mutlu son Amasya mutlu son Afyon mutlu son Denizli mutlu son Kayseri mutlu son Eskişehir mutlu son Tekirdağ mutlu son Adana mutlu son Çanakkale mutlu son Kayseri mutlu son Denizli mutlu son Tokat mutlu son Yalova mutlu son Sivas mutlu son Kırklareli mutlu son Osmaniye mutlu son Mardin mutlu son Zonguldak mutlu son